বিএফইউজে’র কার্যনির্বাহী পরিষদের সভা, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ও কারাবন্দী সাংবাদিকদের মুক্তির দাবি

বিএফইউজে’র কার্যনির্বাহী পরিষদের সভা, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ও কারাবন্দী সাংবাদিকদের মুক্তির দাবি

লতিফ মোহাম্মদ হালিম : মুক্ত সাংবাদিকতা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার অন্তরায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পুরোপুরি বাতিল এবং দীর্ঘদিন কারাবন্দী সাংবাদিকদের শীর্ষ নেতা রুহুল আমিন গাজী ও সিনিয়র সাংবাদিক সাদাত হোসাইনের অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানিয়েছে সাংবাদিকদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে’র নির্বাহী পরিষদ। এছাড়া ফটো সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজল, কার্টুনিস্ট কিশোরসহ সাংবাদিক ও পেশাজীবীদের বিরুদ্ধে চলমান মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহার করার জোর দাবি জানানো হয়েছে।

শনিবার (২০ মার্চ ২০২১) জাতীয় প্রেস ক্লাবে অবস্থিত বিএফইউজে’র নিজস্ব কার্যালয়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত সভায় গৃহীত প্রস্তাবে এ দাবি জানানো হয়েছে। সভায় গণমাধ্যমের ওপর প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ সব ধরণের চাপ ও হুমকি বন্ধ, ঢাকাসহ সারাদেশে সাংবাদিকদের গণহারে চাকরিচ্যুতি, অব্যাহত হামলা, মামলা ও হয়রানি বন্ধের জোর দাবি জানানো হয়েছে।
বিএফইউজে’র সভাপতি এম আবদুল্লাহর সভাপতিত্বে ও মহাসচিব নুরুল আমিন রোকনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় নির্বাহী পরিষদের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন অঙ্গ ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।
সভায় গৃহীত প্রস্তাবে বিএফইউজে’র সাবেক সভাপতি রুহুল আমিন গাজী ও দৈনিক সংগ্রামের বার্তা সম্পাদক সাদাত হোসাইনকে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় দীর্ঘ প্রায় ৫ মাস আটকে রাখায় ক্ষোভ প্রকাশ করে অবিলম্বে তাদের মুক্তির দাবি জানানো হয়েছে। কারাগারে লেখক মুশতাক আহমদের মৃত্যুতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে ঘটনার বিচার বিভাগীয় নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেছে নির্বাহী পরিষদ। কার্টুনিস্ট কিশোরের ওপর অজ্ঞাত স্থানে নির্যাতনের তীব্র নিন্দা জানান বিএফইউজে নেতারা। এছাড়া ফটো সাংবাদিক কাজলের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে চার্জশীট দাখিলের প্রতিবাদ জানিয়ে সকল সাংবাদিক, সম্পাদক, লেখক ও পেশাজীবীদের বিরুদ্ধে হয়রানিকমূলক মামলা প্রত্যারের দাবি জনিয়েছে নির্বাহী পরিষদ।
সভায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের যথেচ্ছ অপব্যবহার করে স্বাধীন সাংবাদিকতাকে বাধাগ্রস্ত করা এবং মত প্রকাশের সাংবিধানিক অধিকার হরণের বিরুদ্ধে তীব্র জনমত গড়ে ওঠার পরও কালো আইনটি বহাল রাখায় বিস্ময় প্রকাশ করে অবিলম্বে পুরো ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানানো হয়।


সভায় দেশের গোটা গণমাধ্যমজুড়ে অস্থিরতা, গণহারে চাকরিচ্যুতি এবং প্রভাবশালী মহলের অব্যাহত চাপ, সাংবাদিক হত্যা, নির্যাতন, নিপীড়ন বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে সাংবাদিক সমাজের ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলার ওপর জোর দেয়া হয়।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সহসভাপতি মোদাব্বের হোসেন, রাশিদুল ইসলাম ও ওবায়দুর রহমান শাহীন, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী, বিএফইউজে’র সহকারী মহাসচিব সহিদুল্লাহ মিয়াজী, কোষাধ্যক্ষ মুহাম্মদ খায়রুল বাশার, সাংগঠনিক সম্পাদক খুরশীদ আলম, দফতর সম্পাদক তোফায়ের হোসেন, প্রচার সম্পাদক মাহমুদ হাসান, নির্বাহী সদস্য আবদুস সেলিম, মো. আবু বকর, একেএম মোহসীন, মো. জাকির হোসেন, সাংবাদিক ইউনিয়ন বগুড়ার সভাপতি মির্জা সেলিম রেজা ও সাধারণ সম্পাদক গনেশ দাস, সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের সাধারণ সম্পাদক আকরামুজ্জামান, কুমিল্লা জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবদুল জলিল ভূঁইয়া, সাংবাদিক ইউনিয়ন দিনাজপুরের সভাপতি মাহফিজুল ইসলাম রিপন, সাংবাদিক ইউনিয়ন ময়মনসিংহের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।
সভায় সাংবাদিক ইউনিয়ন বগুড়ার পুনঃনির্বাচিত সভাপতি মির্জা সেলিম রেজা ও সাধারণ সম্পাদক গনেশ দাস এবং সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের পুনঃনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক আকরামুজ্জমানকে বিএফইউজে’র পক্ষ থেকে সংবর্ধনা ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2020
Design BY Soft-Mack