সাংবাদিক নেতা এম আবদুল্লাহ’র ৫৪তম জন্মদিনে ফুলেল শুভেচ্ছা

সাংবাদিক নেতা এম আবদুল্লাহ’র ৫৪তম জন্মদিনে ফুলেল শুভেচ্ছা

আমারদেশ প্রতিদিন ডেস্ক: বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে’র সভাপতি ও দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার নগর সম্পাদক এম আবদুল্লাহ’র ৫৪তম জন্মদিন আজ।

জন্মদিন উপলক্ষে বিভিন্ন সংগঠন, সহকর্মী, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ কেক কেটে ও ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
এম আবদুল্লাহ ১৯৬৮ সালের ২ মার্চ এই দিনে ফেনী জেলার সোনাগাজীর আহমদপুরে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ছাত্রজীবন থেকেই এম আবদুল্লাহ সাংবাদিকতা শুরু করেন। তিন যুগের দীর্ঘ সাংবাদিকতা জীবনে তিনি মূলধারার বহুলপ্রচারিত সংবাদপত্রের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। ফেনীর তৎকালীন পাঠকপ্রিয় সংবাদপত্র অর্ধসাপ্তাহিক ‘পথ’ পত্রিকায় ১৯৮৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি। ১৯৮৭ সালে ঢাকায় সাপ্তাহিক নতুন বার্তায় অনুসন্ধানী প্রতিবেদক হিসেবে যোগদান করেন। একই সময়ে সাপ্তাহিক ‘ঝর্ণা’ পত্রিকায় রাজনৈতিক প্রতিবেদক হিসেবে কাজ করেন। ১৯৯০ সালের জুনে সে সময়ের শীর্ষস্থানীয় দৈনিক ইনকিলাবে যোগ দেন। ইনকিলাবে সংবাদদাতা থেকে শুরু করে স্টাফ রিপোর্টার, সিনিয়র রিপোর্টার, চিফ রিপোর্টার ও বিশেষ প্রতিনিধি হিসেবে টানা ১৭ বছর সাংবাদিকতা করেন। ২০০৭ সালে এপ্রিলে আরেক শীর্ষ দৈনিক আমার দেশ এ বিশেষ প্রতিনিধি হিসেবে যোগদান করেন। এখানেও চিফ রিপোর্টার, চিফ পলিটিক্যাল রিপোর্টার হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর ২০০৯ সাল থেকে নগর সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

এম আবদুল্লাহ’র ৫৪তম জন্মদিন উপলক্ষে দৈনিক আমারদেশ প্রতিদিন ডটনেট এর পক্ষ থেকে জানাই ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

পেশা ও ব্যক্তিগত কাজে তিনি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে-আমেরিকা, কানাডা, ফ্রান্স, স্পেন, ইতালি, তুরস্ক, জাপান, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, ভারত, নেপাল, পাকিস্তান, মালয়েশিয়া, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রভৃতি। প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পড়াশোনা তাঁর পিতার প্রতিষ্ঠিত মাদ্রাসায়। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। এছাড়া সম্প্রতি তিনি ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) এ এমবিএ করেছেন।

৫৪তম জন্মদিন উপলক্ষে এক আলাপচারিতায় তিনি বলেন,

নির্ধারিত আয়ুষ্কাল থেকে আরও একটি বছর ঝরে গেলো। আরও একধাপ এগিয়ে গেলাম পরকালীন অনন্ত জীবনের পথে। যদিও প্রস্তুতি নেই মোটেই।

ঘাত-প্রতিঘাতের কণ্টকাকীর্ণ পথে এক্সটেন্ডেড লাইফেই আছি বলে বিশ্বাস করি।। সত্য ও ন্যায়, আদর্শ ও নীতির প্রশ্নে নিরাপস থাকা যে কতটা চ্যালেঞ্জের, মূল্য যে কতটা চড়া তা টের পেয়েছি-পাচ্ছি পদে পদে।

আল্লাহ সুবহানাহু তাআলা’র কাছে অশেষ শুকরিয়া পেশাগত কারণে জীবনের ওপর বার বার আঘাত আসার পরও অপঘাতে জীবনাবসান থেকে তিনি রক্ষা করেছেন। হেফাজত করেছেন অলৌকিকভাবে। এখন একটাই কামনা- বিছানায় পড়ে পরিবার, স্বজন বা সমাজের কাউকে কষ্ট না দিয়ে ঈমানের সঙ্গে মহান রবের ডাকে যেন হাসিমুখে সাড়া দিতে পারি। সবার কাছে দোয়ার দরখাস্ত।

তিনি পারিবারিক জীবনে দুই পুত্র ও দুই কন্যা সন্তানের জনক। তার স্ত্রী মোর্শেদা আক্তার গৃহিণী।
বড় মেয়ে মাহবুবা সুলতানা কলি নর্থ-সাউথ ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়াশোনা করছে। বড় ছেলে আতাউর রহমান মারুফ ড্যফোডিল ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজিতে এবং ছোট ছেলে মতিউর রহমান মাসুম আদমজী ক্যান্টোনমেন্ট উচ্চ মাধ্যমিক ২য় বর্ষে পড়াশুনা করছে। ছোট মেয়ে আফরিন সুলতানা তুলি বিএফ শাহীন কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক ১ম বর্ষে পড়াশুনা করছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2020
Design BY Soft-Mack